Maya Apa

Ratings:


Qualification:


Expert in:


Specialized in:


Quote:


has answered total 636 questions


Questions Answered

Avatar

প্রিয় গ্রাহক, আপনার অসুবিধার কথা শেয়ার করার জন্য ধন্যবাদ। আপনি লিখেছেন তিনি আগে এমন আচরণ করতেন না, কাজের চাপে এমন হয়েছেন। সেক্ষেত্রে তাকে উৎসাহিত করতে পারেন কাজের চাপ ও নিজের আবেগ ব্যবস্থাপনা শিখতে। তিনি একজন অভিজ্ঞ প্রফেশনাল সাইকোলজিস্টের সহযোগীতা নিতে পারেন। যদি তিনি নিজের নেতিবাচক আচরণ পাল্টাতে আ...

See More

02 Feb 2021

Avatar

প্রিয় গ্রাহক, আপনার মনের কথা শেয়ার করার জন্য ধন্যবাদ। আপনি নিজেকে নিয়ে সচেতন হয়ে সমস্যা থেকে বের হয়ে আসতে উদ্দোগী হয়েছেন এটা খুবই ইতিবাচক একটি ব্যাপার। আপনি লিখেছেন দিনদিন খুতখুতে স্বভাবের হয়ে পড়ছেন। গ্রাহক, কোন আচরণকে আমরা তখনই সমস্যা বলি যদি সেই আচরণের কারণে আমাদের দৈনন্দিন জীবন, পেশাগত বা অন্যান...

See More

01 Feb 2021

আমি অনেকগুলো সমস্যায় আটকে পড়েছি। আমার মনে হয় সবচেয়ে  ভালো হতো কোনো সাইকিয়াট্রিস্ট এর কাছে চিকিৎসা নিলে, কিন্তু সে সুযোগ নেই... আমার সমস্যাগুলো প্রায় এক মাসের মতো আগে থেকে শুরু হয়েছে। আমি ঢাকার একটা অনেক বিখ্যাত কলেজে ভর্তি হয়েছি। একমাস বা তার পরে কলেজ খুললে বাড়ি ছেড়ে হোস্টেলে চলে যেতে হবে , এতদিনের পুরনো সব বন্ধুদের ছেড়ে চলে যেতে হবে। আমার কলেজে নিয়মকানুন আর পড়াশোনার প্রেশার বলতে গেলে একদম অমানবিক পর্যায়ের। । এদিকে আমার পড়াশোনা হচ্ছে না, কিন্তু কলেজের অনেক ক্লাসমেটের আবার এর মধ্যেই বই শেষ। সেটা দেখে আরো চোখে অন্ধকার দেখতেছি। পড়াশোনা ছাড়াও আরো অনেক কাজ জমে গেছে। অথচ একটাও করা হচ্ছে না।  সবসময় মোবাইলের নোটসে লিখে রাখছি, খাতায় লিখে রাখছি যে কী কী কাজ করা লাগবে, কিন্তু একটা করা হচ্ছে না। সবসময় শুধু বসে বসে ফেসবুক স্ক্রল করছি। পড়াশোনার গতিও অনেক কমে গেছে। এটা নিয়ে আরো অনেক টেনশনে পড়ে যাচ্ছি। অনেক পড়া বাকি পড়ে আছে, কীভাবে শেষ করবো আমি সেই চিন্তায় অস্থির। অকারণেই সবসময় মন খারাপ থাকে, বিশেষ করে রাতের দিকে। প্রচন্ড কান্না করার ইচ্ছা হয়। ইচ্ছে হয় যে চিৎকার করে কাঁদি। সবসময় ভেতরে একটা অপমানিত হবার আশঙ্কা কাজ করে। বন্ধুরা হাসাহাসি করবে দেখে এই পোস্টটাও করছি ফেইক একাউন্ট থেকে। দুই-একজন ছাড়া সেরকম বন্ধুও নেই যার সাথে এই ব্যাপারে মন খুলে কথা বলা যাবে। আমি সবসময় ভাবি যে জীবন সুন্দর, জীবন আনন্দময়, সব প্যারা-ঝামেলার মাঝেও জীবনের সুন্দর দিককে খুঁজে নিতে হবে। গন্তব্যের শেষে পৌঁছানোর লক্ষ্যকে পাশে রেখে, সেটার সাথে সাথে পথের সৌন্দর্যকেও উপভোগ করতে হবে। কিন্তু কেন যেন নিজে সেটা করতে পারি না।  আমি যখন ফোর-ফাইভে পড়তাম তখন একদম নিয়মিত নামায-কালাম পড়তাম।কীভাবে কীভাবে যেন সেটা থেকে অনেক অনেক দূরে সড়ে গেছি। সবসময় চিন্তা করি আবার নিয়মিত নামায কালাম আদায় করার, কিন্তু কোনো কারণে ( আমিও জানি না কী কারণে )  সেদিকেও এগোতে পারছি না। আমার সাহায্য প্রয়োজন। প্লিজ হেল্প মি
Avatar

প্রিয় গ্রাহক, আপনার অনুভূতির কথা শেয়ার করার জন্য ধন্যবাদ। আপনি নিজের ব্যাপারে সচেতন হয়েছেন এবং উদ্দোগী হয়েছেন এটি খুবই প্রশংসনীয়।বুঝতে পারছি বেশ কিছু বিষয় নিয়ে আপনি মানসিক চাপ অনুভব করছেন। গ্রাহক, আমরা কেমন অনুভব করব এবং কিভাবে আচরণ করব তা নির্ভর করে আমাদের চিন্তার ধরণের উপর। আপনার কি ধরণের চিন্তা আ...

See More

01 Feb 2021

Avatar

প্রিয় গ্রাহক, আপনার অনুভূতির কথা শেয়ার করার জন্য ধন্যবাদ। আপনি নিজের ব্যাপারে সচেতন হয়েছেন এবং উদ্দোগী হয়েছেন এটি খুবই প্রশংসনীয়।বুঝতে পারছি বেশ কিছু বিষয় নিয়ে আপনি মানসিক চাপ অনুভব করছেন। গ্রাহক, আমরা কেমন অনুভব করব এবং কিভাবে আচরণ করব তা নির্ভর করে আমাদের চিন্তার ধরণের উপর। আপনার কি ধরণের চিন্তা আ...

See More

22 Feb 2021

Avatar

প্রিয় গ্রাহক, আপনার মনের কথা শেয়ার করার জন্য ধন্যবাদ। আপনি আগের প্রশ্নগুলোর উত্তরে দেওয়া টিপসগুলো কাজে লাগাতে পারেন। মায়া অ্যাপের ভিডিও কাউন্সেলিং সেবা গ্রহণের মাধ্যমেও উপকৃত হতে পারেন। আশা করি আপনাকে কিছুটা সহযোগীতা করতে পেরেছি। আর কোন প্রশ্ন থাকলে করতে পারেন। মায়া আছে আপনার পাশে।

See More

02 Feb 2021

Avatar

প্রিয় গ্রাহক, মায়ার সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ। আপনার অন্য প্রশ্নে উত্তরটি দেওয়া হয়েছে। গ্রাহক, নতুন কোন প্রশ্ন থাকলে করতে পারেন। মায়া আছে আপনার পাশে।

See More

02 Feb 2021

প্রশ্ন করুন আপনিও