প্রিয় গ্রাহক, আপনার প্রশ্নের জন্য ধন্যবাদ। আপনার বাবুর বয়স কত ? আপনি কি আপনার শিশুর মল পরীক্ষা করে নিশ্চিত হয়েছেন যে তার কৃমি হয়েছে ? আপনি কি আপনার শিশু কে কখনো কৃমির ওষুধ খাইয়েছিলেন? আমাদের জানান।  কৃমি এক ধরনের পরজীবী, যা অস্বাস্থ্যকর পরিবেশ ও খাদ্যাভ্যাসের কারণে শিশুদের আক্রমণ করে। কৃমি হওয়ার কারণে শিশুদের যেসকল সমস্যা দেখা দিতে পারে     : * পেটে কৃমি হলে শিশুর খাবারের প্রতি রুচি কমে যায় * স্বাস্থ্য খারাপ হয়, ওজন বাড়ে না। কেননা সে যা খায়, তার এক-তৃতীয়াংশই কৃমি খেয়ে ফেলে। * শিশু রক্তশূন্যতায় আক্রান্ত হয়।  আপনার শিশু কৃমি দ্বারা আক্রান্ত হলে, তার মল পরীক্ষা করে নিশ্চিত হয়ে একজন শিশু রোগ বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিয়ে শিশু কে কৃমির ওষুধ খাওয়াতে হবে। তাহলে এই কৃমির সংক্রমণ থেকে শিশুকে বাঁচাতে যা করবেন ঃ * যেকোনো কিছু খাওয়ার আগে শিশুকে ভালো করে হাত ধুয়ে নিতে হবে। এই অভ্যাস শিশুর মধ্যে তৈরি করুন। * টয়লেট ব্যবহারের পর অবশ্যই সাবান দিয়ে হাত ধোয়ার অভ্যাস করুন। * পানি ভালো করে ফুটিয়ে পান করাবেন। সম্ভব হলে শিশুর তৈজসপত্র ফুটানো পানি দিয়ে পরিষ্কার করুন। * বাইরের অস্বাস্থ্যকর খাবার শিশুকে খাওয়াবেন না। * স্বাস্থ্যকর উপায়ে পরিষ্কার হাতে শিশুর খাবার তৈরি ও পরিবেশন করবেন এবং খাবার ঢেকে রাখবেন। * নোংরা জায়গায় শিশু খালি পায়ে হাঁটবে না। *  প্রতি ছয় মাস পর পর চিকিৎসক এর পরামর্শ নিয়ে শিশুকে কৃমির ওষুধ খাওয়ান। বাড়ির গৃহকর্মীসহ পরিবারের সবাই একসাথে এই ওষুধ খাবেন। আশা করি আপনাকে সাহায্য করতে পেরেছি। আর কোন প্রশ্ন থাকলে, মায়া আপাকে জানাবেন, রয়েছে পাশে সবসময়, মায়া আপা ।

আপনার কোনো প্রশ্ন আছে?

মায়া অ্যাপ থেকে পরিচয় গোপন রেখে নিঃসংকোচে শারীরিক, মানসিক এবং জীবনধারা বিষয়ক যেকোনো প্রশ্ন করুন, বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন।


মায়া অ্যাপ ডাউনলোড করুন

প্রশ্ন করুন আপনিও