গ্রাহক, আপনার কথা থেকে অনুভব করতে পারছি যে, আপনি নিজের প্রতি যত্নশীল হবার বিষয়ে জানতে আগ্রহী।গ্রাহক, নিজের প্রতি যত্নশীল হওয়া খুব ইতিবাচক এবং প্রশংসনীয় একটি বিষয়। গ্রাহক আপনি কি আমাকে বলবেন এ বিষয়ে আপনি কেন জানতে চাইছেন বা আপনি কিভাবে এর দ্বারা উপকৃত হতে পারবেন, নিজের ব্যাপারে যত্ন শীল হওয়া বলতে আপনি কি বুঝিয়েছেন আমার সাথে কি সেটা শেয়ার করা যায়?গ্রাহক, আপনি নিজের মন ও শরীরের প্রতি যত্ন শীল হতে পারেন, যে কাজ গুলো আপনার করতে ভালো লাগে,মন ভালো থাকে, মনের সুস্থতার জন্য আপনি হাসিখুশি থাকার চেষ্টা করতে পারেন, দিনের কিছুটা সময় নিজেরজন্য রেখে নিজের জন্য কিছু করতে পারেন, সখের আগ্রহের কাজগুলো করতে পারেন এতে আপনি মানসিক ভাবেসুস্থ থাকবেন, মানসিক চাপ আসলে যোগব্যায়াম, মেডিটেশন করতে পারেন, এতে মানসিক চাপ কমবে।এছাড়া গান শুনুন ,বই পড়ুন, বাগান করতে পারেন এগুলো মানসিক সুস্থতা বজায় রাখতে সাহায্য করেনিজেকে ভালবাসার চেষ্টা করতে পারেন, নিজের মতামত কে গুরুত্ত দেয়ার চেষ্টা করতে পারেন,নিজের ভাললাগা খারাপ লাগার জায়গা গুলো নিয়ে ভেবে দেখতে পারেন, নিজের অনুভূতি চিন্তা চেতনার জায়গা গুলো নিয়েও চিন্তা করতে পারেন।পরিবার বন্ধুদের সাথে কোয়ালিটিপূর্ণ সময় কাটাতে পারেন।আর শারীরিক ভাবে সুস্থ থাকার জন্য পরিমিত পুষ্টিকর খাওয়া দাওয়া, পরিমিত ঘুম এর বিষয়টি মেনে চলতে পারেন,নিয়মিত কিছুশারীরিক এক্সার সাইজ করতে পারেন এতে আপনি শারীরিক ভাবে সুস্থ থাকতে পারবেন।আশা করি উপকৃত হয়েছেনপাশে রয়েছেমায়া

আপনার কোনো প্রশ্ন আছে?

মায়া অ্যাপ থেকে পরিচয় গোপন রেখে নিঃসংকোচে শারীরিক, মানসিক এবং জীবনধারা বিষয়ক যেকোনো প্রশ্ন করুন, বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন।


মায়া অ্যাপ ডাউনলোড করুন

প্রশ্ন করুন আপনিও