প্রিয় গ্রাহক আপনার প্রশ্নের জন্য ধন্যবাদ। বুঝতে পারছি জীবনের নানারকম নেতিবাচক ঘটনার সম্মুখীন হয়ে আপনার মধ্যে মানসিক চাপ সৃষ্টি করছে। জীবনের বিভিন্ন সময় আমাদের বিভিন্ন প্রতিকূলতার সম্মুখীন হতে হয়। অপছন্দের পরিস্থিতি ও লোকজনের মাঝে বসবাস করতে হয়। আর এই প্রতিকূল পরিস্থিতিতে নিজেকে যতটা মানিয়ে নিতে পারব তত আমাদের মানসিকভাবে সুস্থ থাকার দক্ষতা বেড়ে যাবে। পারিবারিক সমস্যাগুলো দূর করার জন্য স্থানীয় পারিবারিক কোন অভিভাবকের সাহায্য নিতে পারেন। এই মানসিক বিপর্যস্ত অবস্থায় যেহেতু শেয়ারিং এর জন্য কাউকে পাচ্ছেন না ডায়রি লিখতে পারেন নিয়মিত। এতে করে নিজেকে কিছুটা হাল্কা বোধ করতে পারেন।অশান্ত অবস্থায় নিজেকে রিলাক্স করতে ডীপ ব্রেদিং করতে পারেন,এটি আপনার মস্তিষ্কে অক্সিজেনের পরিমান বাড়িয়ে আপনাকে শান্ত করতে ও যৌক্তিক সিদ্ধান্ত নিতে সহায়তা করবে। যখনই কোন নেতিবাচিক চিন্তা আসবে তখন তার ইতিবাচিক চিন্তা কি হতে পারে তাও ভাবতে পারেন।তাহলে আপনার মানুষিক চাপ কমবে ও আপনি কাজ করার মোটিভেশন পাবেন। মন খারাপ থাকলে বা কষ্ট হলে সাধারণত দেখা যায় যে আমরা নিজেদের সবকিছু থেকে গুটিয়ে ফেলি। নিজেদের ভালোলাগার যে কাজগুলো আগে করতাম তখন তা আর করিনা, কারো সাথে কথা বলতে ইচ্ছে হয়না। এভাবে করতে থাকে আমাদের খারাপ লাগা আরো বেশি বেড়ে যায়।এভাবে দেখা যায় যে আমরা একটি মন খারাপের চক্রের মধ্যে পড়ে যাই। তাই একটু জোর করে হলেও যদি মন ভাল হবার কিছু কাজ করতে পারেন তবে তা আপনার জন্য উপকারী হতে পারে।মন ভাল হবার জন্য কিছু কাজ করতে পারেন। গল্পের বই কিংবা মুভি দেখে সুন্দর সময় কাটাতে পারেন। নিয়মিত ব্যায়াম করতে পারেন যা আপনার শরীর এবং মন দুটোকেই ভাল রাখবে। শরীরচর্চা আমাদের মানসিক স্বাস্থ্যের উন্নতিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।আপনার কাছের মানুষটির সাথে মন খারাপের বিষয়গুলো নিয়ে কথা বলতে পারেন-যিনি আপনার কথা গুলো নিরোপেক্ষ মন নিয়ে শুনবেন ও গোপনীয়তা রক্ষা করবেন।আপনার সুখ, দুঃখ, আনন্দ, বেদনা, রাগ, ঘৃণা সমস্তঅনুভুতি গুলোকে নিজের মনে পুষে না রেখে প্রকাশ করে ফেলুন।কথা শেয়ার করার মত এমন কেউ না থাকলে আপনার অনুভূতিগুলো লিখে রাখতে পারেন,পরে তা আর না পড়ে ছিড়ে ফেলবেন,এতে আপনার নিজেকে অনেকটা হালকা অনুভব করবেন।এছাড়াও আপনি রিলাক্সেশান টেকনিক ব্যবহার করতে পারেন।অতিরিক্ত চিন্তার সময় নিজেকে relax রাখার জন্য relaxation বা deep breathing করতে পারেন। মেডিটেশন বা Relaxation হল এমন একটি প্রক্রিয়া যার মাধ্যমে শরীরকে শিথিল করা যায়। মানসিক ভাবে প্রাশান্তি লাভ করা যায়। দুচিন্তা,রাগ, আবেগ, হতাশা থেকে কিছুটা মুক্তি পাওয়া যায়। এর মাধ্যমে দীর্ঘ নিঃশ্বাস নেওয়ার ফলে মস্তিস্কে বিশুদ্ধ অক্সিজেন প্রবেশ করে মস্তিস্ককে অনেক শিথিল করে যার ফলে পরবর্তীতে আর ও ভাল ভাবে সমস্যা নিয়ে চিন্তা করা যায়।নিম্নের ভিডিও লিঙ্ক টি দেখলে আপনি মেডিটেশন বা relaxation সম্পর্কে আরও ভাল করে জানতে পারবেন। https://m.youtube.com/watch?v=6IvCEvdwxQs  আশা করি উপকৃত হয়েছেন। পরবর্তীতে আর কোন প্রশ্ন থাকলে মায়া আপাতে জানান। পাশে আছি সবসময় মায়া আপা। 

আপনার কোনো প্রশ্ন আছে?

মায়া অ্যাপ থেকে পরিচয় গোপন রেখে নিঃসংকোচে শারীরিক, মানসিক এবং জীবনধারা বিষয়ক যেকোনো প্রশ্ন করুন, বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন।


মায়া অ্যাপ ডাউনলোড করুন

প্রশ্ন করুন আপনিও