প্রিয় গ্রাহক,আপনার মনের অনুভূতি গুলো শেয়ার করার জন্য ধন্যবাদ। আসলে সেক্স মানুষের বেসিক চাহিদা।আর পূর্ণয়স্কদের মাঝে এই চাহিদাটা অনুভব হওয়াটাই স্বাভাবিক। আর যখন এই চাহিদা টা অনুভব হয় তখন অস্থির লাগতে পারে। তাই যখন নিজের মাঝে এই চাহিদা আসবে তখন এই চাহিদাকে  accept করে নেয়া প্রয়োজন যে এই চাহিদা অনুভব হতেই পারে।যখন আপনি এই বিষয় টা accept করে নিবেন তখন আপনার মাঝে চাপ কম আসবে এবং তখন এই অনুভূতিটাও মেনে নিতে সহজ হবে।তা না হলে নিজের মাঝে একটা চাহিদা ও চাপ তৈরি হতেই থাকবে যা আপনার শারীরিক ও মানসিক সমস্যার সৃষ্টি করতে পারে।অতিরিক্ত যৌন ইচ্ছাকে দমাতে নিচের কাজগুলো করতে পারেন- ১. পছন্দের কাজ – দৈহিক উত্তেজনা দমনের সবচেয়ে বড় হাতিয়ার, ভালো লাগার কাজ। যেমন বই পড়া, গান শোনা, কবিতা লেখা, গার্ডেনিং ইত্যাদি। প্রথম ১০-১৫ মিনিট নিজের পছন্দের কাজের মধ্যে কাটিয়ে দিতে পারলে, শারীরিক উত্তেজনা দমন করা যায়। ২. বাড়ির কাজ – শারীরিক উত্তেজনার কারণে মনস্থির করা মুশকিল হয়ে পড়ে। সে সময় ঘরের অন্য কোনও কাজে লিপ্ত হয়ে যেতে পারলে ভালো। যেমন রান্নাঘর বা শোয়ারঘর গুছিয়ে নেওয়া, বাড়ির কোনও কিছু পরিষ্কার করা, আলমারি গোছানো, ঘর ঝাড় দেওয়া ইত্যাদি। ধীরে ধীরে মন অন্যদিকে ঘুরে যাবে। মিলনেচ্ছার কথা মাথা থেকে বেরিয়ে যাবে। ৩. গল্প করা – মনকে ঘুরিয়ে দেওয়ার জন্য কারোর সাথে ফোনে গল্প জুড়ে দেওয়া যেতে পারে।হাতের কাছে কাউকে না পেলে, পরিবারের বড়, যাঁরা অবসরপ্রাপ্ত তাঁদের খোঁজখবর নিতে পারেন।মন অন্যদিকে ঘুরে যাবে।৪. এক্সারসাইজ় – উত্তেজনার সাময়িক প্রশমন ঘটানোয় ভালো কাজ করে শারীরিক পরিশ্রম বা এক্সারসাইজ়। সেটা সাঁতার, সাইক্লিং বা হাঁটাও হতে পারে। দৈহিক কসরতের ফলে অনেকটা ঝরঝরে হয় শরীর। ৫. বাড়ির বাইরে যাওয়া – শারীরিক উত্তেজনা কাটানোর আরও একটা সহজ উপায়, বাইরে বেরিয়ে পড়া। বাজার-ঘাট, শপিং মল। কিছু না থাকলে, বাড়ির টুকিটাকি জিনিস কেনা, বাইরে খাওয়া-দাওয়া করা ইত্যাদি। ৬. বিনোদন – অনেক সময় টিভি বা সিনেমা দেখলেও মন অন্যদিকে ঘুরে যায়। নিজের পছন্দের সিনেমা ল্যাপটপে দেখা যেতে পারে। ৭.যে বিষয় গুলো যৌন আগ্রহ সৃষ্টি করতে পারে এরকম কিছু শুনা ও দেখা থেকে দূরে থাকার চেষ্টা করতে পারেন।৮.একা না থাকার চেষ্টা করতে পারেন।কেননা একা থাকলে সেক্সুয়াল চিন্তা বেশি আসতে পারে এবং ইচ্ছা বেশি কাজ করতে পারে।পাশাপাশি মেডিটেশন করা এবং রিলাক্সজেশন ব্যায়াম করা যেতে পারে তাহলে মনটা অনেক সতেজ থাকবে বলে আশা করছি। আশা করি কিছু টা সাহায্য করতে পেরেছি।আর কোন প্রশ্ন থাকলে মায়াকে জানাবেন।আপনার প্রয়োজনে রয়েছে পাশে সব সময় মায়া।

আপনার কোনো প্রশ্ন আছে?

মায়া অ্যাপ থেকে পরিচয় গোপন রেখে নিঃসংকোচে শারীরিক, মানসিক এবং জীবনধারা বিষয়ক যেকোনো প্রশ্ন করুন, বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন।


মায়া অ্যাপ ডাউনলোড করুন

প্রশ্ন করুন আপনিও