প্রিয় গ্রাহক, আপনার প্রশ্নটির জন্য অনেক ধন্যবাদ । গ্রাহক আপনার ত্বকের ধরন উল্লেখ করেননি। প্রতিদিন অন্তত ১ বার ফেইস অয়াশ দিয়ে স্কিন ক্লিন করে টোনার অ্যাপ্লাই করে ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করবেন। বাইরে গেলে সানস্ক্রিন ব্যবহার করতেই হবে। বাইরে থেকে এসে ডিপ ক্লিন করা তারপর সেই টোনার অ্যাপ্লাই করে ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার। মোট কথা, ক্লিনিং, টনিং, ময়েশ্চারাইজিং, এবং সানস্ক্রিন অ্যাপ্লাই ব্যস। আর হ্যা সপ্তাহে ১ বার ঘরে বসেই ফেসিয়াল করতে পারেন। আসলে ত্বকের ধরন ভেদে রূপচর্চায় পরিবর্তন আনতে হয়। সব ধরনের চকের সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ ফেসিয়ালের উপায় বলছি ফলো করে দেখুন। ফেসিয়াল এর প্রথম ধাপেই মুখটাকে একটু ভালো করে ধুয়ে নিয়ে নিজের পছন্দ মত ম্যাসাজ ক্রিম দিয়ে ম্যাসাজ করে নিন। ম্যাসাজের পরে হালকা কোন ক্লিঞ্জার দিয়ে মুখ ধুয়ে নিন। এইবারে একটা স্ক্রাব লাগাতে হবে মুখে- টমেটোর রস ২-৩ টেবিল চামচ টক দই ১ টেবিল চামচ ওটমিল পরিমাণমত ( যাতে একটা ঘন পেস্ট বানানো যায় ) পানি পরিমাণমত প্রথমে পানি ও ওটমিল নিয়ে এর সাথে যোগ করুন টমেটোর রস ও টক দই। ঘন করে পেস্ট বানিয়ে পুরু করে মুখে লাগিয়ে নিন। শুকিয়ে গেলে হালকা হাতে ঘসে তুলে ফেলুন। এরপরে কুসুম গরম পানি দিয়ে ধুয়ে নিন। ডিমের কুসুম- ১ টি কলা- ১ টি কয়েক ফোঁটা লেবুর রস খুব সহজ বানানো। কুসুম ফেটে নিয়ে তাতে কলা ব্লেন্ড করে বা কাঁটাচামচ দিয়ে মিশিয়ে নিন। যদি গন্ধ লাগে তাহলে ২ ফোঁটা গোলাপজল দিতে পারে। সাথে মেশান লেবুর রস। প্যাকটি মুখে লাগিয়ে রাখুন ১৫ মিনিট। এরপরে ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এবার ঘরে থাকা আলু ঝুরি করে কেটে নিয়ে একটু চিপে নিলে পেয়ে যাবেন আলুর রস। সেটাই তুলোর সাহায্যে লাগিয়ে নিন। শুকিয়ে যাওয়ার পরে চাইলে মুখ ধুয়ে নিতে পারেন, আবার না ধুলেও অসুবিধে হবে না। এভাবে সপ্তাহে দুদিন প্রক্রিয়াটি ফলো করুন। এভাবে ৩ মাস কন্টিনিউ করলে পরিবর্তন দেখতে পারবেন।ত্বকের ধরন ভেদে ফেইসওয়াশ, ময়েশ্চারাইজার, সানব্লক ইউজ করতে ভুলবেন না। আশা করি আপনাকে সাহায্য করতে পেরেছি। আর কোনও প্রশ্ন থাকলে, মায়াকে জানাবেন,রয়েছে পাশে সবসময়,মায়া।

আপনার কোনো প্রশ্ন আছে?

মায়া অ্যাপ থেকে পরিচয় গোপন রেখে নিঃসংকোচে শারীরিক, মানসিক এবং জীবনধারা বিষয়ক যেকোনো প্রশ্ন করুন, বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন।


মায়া অ্যাপ ডাউনলোড করুন

প্রশ্ন করুন আপনিও